STORIES for CHILDREN by Sister Farida

(www.wol-children.net)

Search in "Bengali":

Home -- Bengali -- Perform a PLAY -- 040 (The small sailboat)

Previous Piece -- Next Piece

নাটক -- আপনার বন্ধুদের জন্য সঞ্চালন করুন !!
শিশুদের সঞ্চালন জন্য না

40. খুদে জাহাজ


শেষ পর্যন্ত ছুটির দিন কাছে এসে গেল। দীর্ঘদিন ধরে এমন একটা দিনের অপেক্ষাতে জাফর। লম্বা সময় ধরে সে বিশ্রাম নেবার জন্য এবং শরীরের প্রতি যত্ন নেয়া ও তাঁর পছন্দের খেলার কথা ভাবছিলেন।

পালতোলা নৌকা প্রস্তুতের জন্য দিনভর সে সময় দিচ্ছিল। তার পিতার কারখানায় যাবার অনুমতিও সে পেয়ে গেল। সকল প্রস্তুতির সর্বশেষ কাজটি ছিল নৌকাটিকে লাল ও নীল রং দিয়ে চিত্রিত করা, এবং নৌকার তিনটি মাস্তুলে পাল ঝুলিয়ে দিল। গর্বের সাথে নৌকাটিকে নিয়ে তীর অভিমুখে পৌঁছে গিয়ে ঢেউয়ের মধ্যে তা ভাসালো। সে খেয়াল করতে পারলো না একদল বালক তার কর্মকান্ড দেখতে ছিল এবং ক্রমেই তার কাছে এগিয়ে আসলো।

বালক: ‘ওটা কি তুমি নিজে তৈরি করেছো?’

‘আমরা সকলে নিয়ে তা ভাসাবো।’

জাফরের কিছু একটা বলার পূর্বেই তাকে ধাক্কা মেরে কতকগুলো নলের উপর ফেলে দিল। ইতোমধ্যে সে ফিরে আসলো, ছেলেপুলের দল ভেগে গেল, আর সাথে সাথে তার নৌকাটিও তার হাত ছাড়া হয়ে গেল।

জাফর কাঁদো কাঁদো অবস্থায় বাড়িতে ফিরে গেল।

পিতা: ‘তোমার জন্য একটা নতুন পালতোলা নৌকা কিনে আনবো।’

জাফর: ‘বাবা, আমার কাছে আমার তৈরি করা নৌকাটাই বড়ই পছন্দের।’

সপ্তাহ গড়িয়ে গেল। একদিন জাফর একটা পালতোলা নৌকা দোকানের খিড়কি দিয়ে দেখতে পেল।

জাফর: ‘বাবা, ওটাইতো আমার পালতোলা নৌকা!’

পিতা: ‘তুমি কি নিশ্চিত, ওটা যে তোমার?’

জাফর: ‘ঠিকই, আমি নিশ্চিত। তুমি কি দেখতে পাও জাহাজের গলুতেই একটা চিহ্ন রয়েছে?’

জাফর দৌড়ে দোকানে ঢুকে বিক্রেতা মহিলার কাছে হাজির:

জাফর: ‘এই পালতোলা নৌকাটির মালিক তুমি নও, এটা আমার।’

জাফরের পিতা সবকিছু খুলে বললেন হতচকিত বিক্রেতার কাছে। তার বর্ণনা যখন শেষ হলো তখন মহিলা বললো:

মহিলা: ‘একদল বালকের কাছ থেকে আমি নৌকাটিকে কিনে নিয়েছি। এর দ্বারা আমার কিছু আয় হবে। একটা মুল্য আমি এ নৌকাটি পেলে বিক্রি করে দেব।’

যে নৌকাটি সে নিজেই তৈরি করেছিল তা পুনরায় মূল্যের বিনিময়ে ক্রয় করার জন্য জাফর রাজি হলো।

বাড়ি ফেরার পথে সে বললো:

জাফর: ‘পালতোলা ক্ষুদে নৌকা, দ্বিতীয় বারের মতো তুমি আমার অধিকারে আসলে। প্রথমে আমি তোমাকে তৈরি করেছি, আর দ্বিতীয়বার আমি মূল্য দিয়ে ক্রয় করে নিলাম।’

পিতা: ‘তুমিও কি খোদার কাছে দ্বিতীয় বারের মতো অধিকারে আসলে?’

জাফর: ‘কেন দ্বিতীয়বার?’

পিতা: ‘ভালো কথা, খোদা মানুষ সৃষ্টি করেছেন, তারপর পাপের কারণে মানুষ খোদার কাছ থেকে দূরে সরে যায়। মসিহ যখন সলিবে নিজের প্রাণ কোরবানি দিলেন, তিনি নিজের জীবনের মূল্যে আমাদের পাপের প্রায়শ্চিত্ত শোধ দিলেন যেন পুনরায় আমরা খোদার অধিকারে ফিরে আসতে পারি।’


লোকবল: ভাষ্যকার, বালক, জাফর, পিতা, মহিলা বিক্রেতা

© Copyright: CEF Germany

www.WoL-Children.net

Page last modified on November 21, 2019, at 08:42 AM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.109)