STORIES for CHILDREN by Sister Farida

(www.wol-children.net)

Search in "Bengali":

Home -- Bengali -- Perform a PLAY -- 057 (Taken hostage in Egypt 5)

This page in: -- Arabic? -- Armenian -- Aymara -- Azeri -- BENGALI -- Bulgarian -- Cebuano -- Chinese -- English -- Farsi? -- French -- German -- Guarani -- Hebrew? -- Hindi -- Indonesian -- Italian -- Korean -- Kyrgyz -- Malayalam? -- Portuguese -- Quechua? -- Romanian -- Russian -- Serbian -- Spanish-AM -- Spanish-ES -- Tamil -- Turkish -- Urdu? -- Uzbek

Previous Piece -- Next Piece

নাটক -- আপনার বন্ধুদের জন্য সঞ্চালন করুন !!
শিশুদের সঞ্চালন জন্য না

57. মিশরে আত্মরক্ষা গ্রহণ-৫


(ঘোড়ার খুরের শব্দ)

রাজার রথে করে ইউসুফ মিশরের মধ্যে বেরিয়ে পড়লেন। প্রত্যেকে তাকে সম্মান প্রদর্শন করছে। ফেরাউন তাকে তার সাহায্যকারীর পদে অভিষেক দিলেন। ফেরাউন তাঁর নামফলক বিশিষ্ট আঙ্গুরি দিয়ে তার অধিকার মোহরাঙ্কিত করলেন। ইউসুফের গাড়ি পাকা শষ্য পাম বাগানের ক্ষেতের পাশ দিয়ে চলছে।

খোদা যা কিছু বলছেন ঠিক সেইমত হতে চলেছে। প্রাচুর্যময় ফসল উৎপন্ন হলো।

(শষ্য মলন লওয়ার শব্দ)

ইউসুফ অনেকগুলো ইমারত তৈরি করলেন শষ্য সংগ্রহ করার জন্য। প্রচুর পরিমানে শষ্য সংগৃহিত হলো। ইউসুফের পরিকল্পনা নিখুঁত। যেমন তিনি বলেছিলেন, ৭ বছর প্রাচুর্যময় ফসল ফলনের পরে ৭ বছর মারাত্মক ক্ষরার আবির্ভাব ঘটবে। লোকজন খাদ্যাভাবে ক্লিষ্ট হয়ে ফেরাউনের কাছে ছুটে গেল।

জনগণ: ‘আমি ক্ষুধার্ত! আমরা না খেয়ে আছি। আমাদের সন্তানদের নিয়ে খেয়ে পরে বেঁচে থাকার জন্য একটা কিছু করুন।’

ফেরাউন: ‘তোমাদের সাহায্য করার জন্য ইউসুফের হাতে দায়িত্ব দেয়া আছে। সে যা কিছু বলে তদ্রুপ কাজ করো।’

এমন ক্ষুধা ক্লিষ্ট লোকজন সব জায়গা থেকে তার কাছে ছুটে আসতে লাগলো। বিদেশ থেকেও লোকজন মিশরে ছুটে আসতে শুরু করলো। দশজন লোক এসে তার কাছে সালাম জানালো। ইউসুফ সাথে সাথে তাদের চিনতে পারলেন। তারাই তার ভাইয়েরা। ইউসুফের মনে সেই স্বপ্নের বিষয় জাগলো। তাছাড়া তারা যে কতোটা ঘৃণা ও দুর্ব্যবহার করেছে তাঁর সাথে, তার সবটুকু তার মনে জাগলো। তারা যে তাকে ক্রিতদাস হিসেবে বিক্রি করে দিয়েছিল তাও তার মানসপটে ভেসে ওঠলো। কিন্তু উক্ত ভাইয়েরা তাকে আদৌ চিনতে পারলো না।

ইউসুফ তাদের সাথে কঠিনভাবে কথা বললেন।

ইউসুফ: ‘তোমরা কোথা থেকে এসেছো?’

ভ্রাতা: ‘আমরা কানান দেশ থেকে এসেছি, আমরা খাদ্য শষ্য ক্রয় করার জন্য এসেছি।’

ইউসুফ: ‘তোমরা মিথ্যা কথা বলছো। তোমরা গুপ্ত চর!’

ভ্রাতা: ‘সত্যি কথা বলছি, আমরা গুপ্তচর নই! আমরা ১২ ভাই। একজন এখন বাড়িতে আছে, আর একজন মারা গেছে।’

ইউসুফ: ‘তোমাদের একটি কথাও আমি বিশ্বাস করি না। যেহেতু আমি খোদাকে মহব্বত করি তাই আমি তোমাদের খাদ্যশষ্য দেব। কিন্তু আমি চাই তোমরা অন্যভাইকে নিয়ে আবার আসবে। তোমাদের একজন এখানে থেকে যাবে তখন প্রমাণ হবে যে তোমরা আমার আজ্ঞা পালন করছো।’

ইউসুফ অতোটা কঠিন হলেন কেন? তিনি কি চেয়েছিলেন তাদের সাথে ফিরে যেতে? না! তিনি ভাইদের পরীক্ষা করছিলেন। তিনি দেখতে চেয়েছিলেন ইতোমধ্যে তাদের কোনো পরিবর্তন ঘটেছে কিনা। তারা বুঝতেই পারলোনা যে প্রত্যেকের সাথে কথা বলার মধ্য দিয়ে ইউসুফ তাদের মনের অবস্থা বুঝতে পেরেছেন।

ভ্রাতা: ‘ইউসুফের সাথে আমরা যে আচরণ করেছি তার যথার্থ শাস্তি হলো এটা।’

ইউসুফ এ কথা শুনে কান্নায় ভেঙ্গে পড়লেন। কিন্তু তখন পর্যন্ত তার নিজের আসল পরিচয় তাদের কাছে লুকিয়ে রাখলেন। যে খাদ্যশষ্য তারা নিয়েছিল তা নিয়ে তারা দেশে ফিরে গেল, কিন্তু সিমিয়োন মিশরে থেকে গেল।

পিতা ইয়াকুব যখন শুনতে পেলেন তাদের যাত্রার খুটিনাটি সব খবর তখন তিনি ভিত হয়ে পড়লেন। খাদ্যশষ্য খাওয়া শেষ হলে পরে তারা আবার মিশরে চলে আসলো আর এ সময় বেঞ্জামিনকে সাথে করে তারা নিয়ে আসলো। ভাইয়েরা সকলে ভিত হয়ে পড়েছিল যখন তারা ২য় বারের মতো মিশরের উদ্দ্যেশে রওয়ানা দিল।

তারপর কি হলো?

পরবর্তি নাটকে পরবর্তি ঘটনার বর্ণনা জানতে পারবে।


লোকবল: ভাষ্যকার, লোকজন, ফেরাউন, ইউসুফ ও ভাইয়েরা

© Copyright: CEF Germany

www.WoL-Children.net

Page last modified on November 07, 2019, at 07:57 AM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.109)