STORIES for CHILDREN by Sister Farida

(www.wol-children.net)

Search in "Bengali":

Home -- Bengali -- Perform a PLAY -- 081 (Man over board 1)

Previous Piece -- Next Piece

নাটক -- আপনার বন্ধুদের জন্য সঞ্চালন করুন !!
শিশুদের সঞ্চালন জন্য না

81. আরোহী-১


আমাদের সাথে এস, শহর দেখার জন্য আমরা চলছি!

বালকঃ ‘উক্ত দূর্গ বড়ই উক্তম। আমি প্রহরিদের সুউচ্চ স্থান থেকে তা দেখব।’

বালিকাঃ ‘আমি বরং গ্রন্থাগারে চলে যাই। ঘণ্টাখানেক ধরে খুজতে পারবো তথায়।’

বালকঃ ‘রাজ প্রাসাদ, কতই না চমৎকার!’

বালিকাঃ ‘আমি চিড়িয়াখানায় যাচ্ছি।’

বালকঃ ‘তুমি কি তোমার আত্মীয়-স্বজনদের সাথে সাক্ষাৎ করতে যাচ্ছো সেথা?’ (হাসির শব্দ)

অনেক বৎসর পূর্বে খোদা শহরের প্রতি দৃষ্টি করলেন। তথাকার সৌন্দর্যধারণ দেখে সন্তুষ্ট হতে পারলেন না। তিনি দেখতে পেলেন সৌন্দর্যধারনের অন্তরে রয়েছে প্রচুর ঘৃণা যুদ্ধ, প্রতারণা ও খুন- রাহাজানি। শহরের লোকজন এমনভাবে জীবন-যাপন করে দেখে মনে হয় খোদার অস্তিত্ত্ব ও তার আইনকানুন বলতে কোনো কিছুরই অস্তিত্ব নেই।

তারা তাদের স্রষ্টাকে ভুলে গেছে। এমন ক্ষতিকারক অবস্থা প্রত্যেকের মধ্যে ঘটতে পারে। খোদা যদি ঘনিষ্টভাবে তোমাকে তথা তোমার জীবন দেখতে চান তবে তিনি কি দেখতে পাবেন? তিনি পবিত্র বলে অবশ্যই তিনি পাপের শাস্তি দিবেন। তবে তিনি নিজেই প্রেম, তাই প্রেমের কারণে তিনি মানুষকে বাঁচাবেন, সে জন্যই তিনি তাদের সাবধান করে চলছেন।

খোদা বললেনঃ ‘ইউসুন, বিশ্ব প্রশিদ্ধ নিনভি শহরে যাও। তাদের কাছে গিয়ে বলো, তাদের পাপের শাস্তি দিতে উদ্ধত হয়েছি। কেননা ঐ শহরের লোকজন আমাকে ভুলে গেছে।’

ইউনুস গেলেন বটে তবে নিনভি শহরে নয়।

(পালিয়ে যাবার শব্দ ও উর্দ্ধস্বাসের শব্দ)

ইউনুসঃ ‘আমার নিনভি যাবার প্রশ্নই জাগে না। আমাদের শত্রুদের দেশে? আমি পাগল নই। তাদের মৃত্যু কাম্য। ঐ যে একটা জাহাজ ঘাটে বাধা আছে। আমি টাকা দিয়ে টিকেট নিয়ে এখান থেকে ভেগে যাবো।’

খোদার কাছ থেকে যাওয়াটা বড়ই ব্যয় বহুল। ইউনুস জাহাজে চড়ে মালামালের জন্য নির্দিষ্ট স্থানে উঠে ক্লান্ত হয়ে বাক্স ও খাচার মাঝে ঘুমিয়ে পড়লো। ইউনুস বধির হয়ে পড়লো। কেউ কি খোদার সম্মুখ থেকে পালিয়ে যাবার ক্ষমতা রাখে? এমনকি পাতাল পুরিতেও তিনি আমাদের প্রতি দৃষ্টি রেখে থাকেন তাই সেক্ষেত্রেও ইউনুস ছিলেন খোদার নজরে।

হঠাৎ একটি মারাত্মক ঝড় উঠলো। জাহাজের নাবিকগণ তাদের দেবতাদের কাছে আর্তনাদ শুরু করলো। জীবন্ত খোদা যার হাত রয়েছে তাদের বাঁচাবার তাঁকে তারা চিনতো না। জাহাজের মালামাল সমূদ্রে নিক্ষেপ করলো জাহাজটিকে হালকা করার জন্য। নাবিক ইউনুসকে ঘুম থেকে জাগানোর জন্য ধাক্কা দিল।

নাবিকঃ ‘এই তুমি কে, ঘুম থেকে জাগো! তোমার খোদাকে ডাকো, সম্ভবত তিনি আমাদের বাঁচাবেন।’

ইউনুস তাৎক্ষণিক জেগে উঠলেন আর সবকিছু তাঁর মনে ভেসে উঠলো।

জাহাজের কর্মচারীঃ ‘তুমি কে? কোথা থেকেই বা তুমি এসেছো? তোমার পেশা কি?’

ইউনুসঃ ‘আমার নাম ইউনুস। আমি এমন প্রভুর সেবাকারী যিনি আসমান জমিন সৃষ্টি করেছেন। ঝড়ের কারণ আমার পাপ, কেননা আমি খোদার অবাধ্য কাজ করেছি।’

জাহাজের কর্মচারীঃ ‘আমাদের এখন করণীয় কি হবে?’

আমাকে সাগরে ফেলে দাও, তাতে ঝড় বন্ধ হবে আর খোদা তোমাদের বাঁচাবেন।

প্রথমে তারা তাকে সমূদ্রে নিক্ষেপ করতে চায় নি, তারপরে তারা তাকে সমূদ্র বক্ষে ছুড়ে মারলো।

(জলে কিছু পতনের শব্দ)

এখানে কি ইউনুসের সবকিছু শেষ হয়ে গেল? না! সাহসি অভিযান মাত্র শুরু হলো।

পরবির্ত নাটকে বাকি অংশ চলবে।


লোকবলঃ ভাষ্যকার, বালক, বালিকা, খোদা, ইউনুস, নাবিক, অধিনায়ক

© Copyright: CEF Germany

www.WoL-Children.net

Page last modified on November 18, 2019, at 02:39 PM | powered by PmWiki (pmwiki-2.2.109)